meghna
----news24bd-net

আগামী শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) উজবেকিস্তানে  রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাক্ষাৎ হতে পারে। দুজনের বৈঠক হতে পারে বলেও ধারণা করা হচ্ছে। বৈঠকে রাশিয়ার সঙ্গে ভারতের বাণিজ্যসহ বিভিন্ন বিষয় আলোচনা হবে বলে ক্রেমলিনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

meghna

সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশনের (এসসিও) দুদিনের শীর্ষ সম্মেলনের ফাঁকে তাদের মধ্যে ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে পারে। যদিও ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে মোদী এবং পুতিনের বৈঠকের বিষয়টি এখনও নিশ্চিত করা হয়নি।

মধ্য এশিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ বৃদ্ধি ও বাণিজ্য প্রসারের পাশাপাশি সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় সার্বিক সহযোগিতা বাড়ানোর উদ্দেশ্যেই এসসিও গঠিত হয়। এসসিওর সদস্য দেশগুলো হলো- ভারত, চীন, রাশিয়া, পাকিস্তান, কাজাখস্তান, কিরগিজস্তান, তাজিকিস্তান ও উজবেকিস্তান।

রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, ভারতের বাজারে রাশিয়ার সার এবং দ্বিপাক্ষিক খাদ্য সরবরাহসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনার পরিকল্পনা রয়েছে। বৈঠক হলে দুই নেতা এসব বিষয়ে আলোচনা করতে পারেন। কৌশলগত স্থিতিশীলতাসহ বিভিন্ন বিষয়েও আলোচনা হতে পারে।

রুশ প্রেসিডেন্টের সগযোগী ইউরি উশাকোভের বরাত দিয়ে তাস নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, মোদী এবং পুতিনের মধ্যকার বৈঠকে কৌশলগত স্থিতিশীলতা, এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের পরিস্থিতি এবং জাতিসংঘ, জি২০, এসসিও'র মতো সংস্থাগুলোর বহুপাক্ষিক সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনা হতে পারে।

মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে উশাকোভ বলেন, এটি বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ কারণ ভারত ডিসেম্বরে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে সভাপতিত্ব করবে এবং ২০২৩ সালে এসসিও'র নেতৃত্ব দেবে, একই সঙ্গে জি-২০ সম্মেলনেরও সভাপতিত্ব করবে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে হামলা চালায় রাশিয়া। তারপর থেকেই পশ্চিমা দেশগুলোর নিষেধাজ্ঞার কবলে রয়েছে মস্কো। কিন্তু এর মধ্যেও রাশিয়ার কাছ থেকে অপরিশোধিত তেল কেনা বন্ধ করেনি ভারত। দুদেশের মধ্যকার বাণিজ্যিক সম্পর্ক ভালো ভাবেই চলছে বলা যায়।

মূলত পশ্চিমা দেশগুলোর নিষেধাজ্ঞার কারণে রাশিয়া কম দামে অপরিশোধিত তেল বিভিন্ন দেশের কাছে বিক্রি করছে। আর এই সুযোগ লুফে নিয়েছে ভারত। অনেক দেশই যখন রাশিয়ার তেল কেনা থেকে সরে এসেছে তখন ভারত দ্বিগুণ পরিমাণে দেশটিতে থেকে তেল কিনছে।

তবে এ বিষয়ে ভারত তার অবস্থান স্পষ্ট করেছে। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্কর বলেছেন, তার দেশ উচ্চ মূল্যে জ্বালানি কেনার মতো অবস্থায় নেই। সে কারণেই তারা রাশিয়ার কাছ থেকে তেল কেনা অব্যাহত রেখেছে।

তিনি বলেছেন, বেশি দামে তেল কেনার সামর্থ্য তার দেশের মানুষের নেই। তিনি আরও বলেন, তাদের সঙ্গে সবচেয়ে ভালো চুক্তি নিশ্চিত করার বিষয়ে আমি দায়বদ্ধ এবং এটা আমার নৈতিক দায়িত্ব। জয়শঙ্কর বলেন, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশ ভারতের এই অবস্থান জানে এবং এটা নিয়ে তাদের কোনো সমস্যা নেই।

তাস নিউজ এজেন্সির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাশিয়া এবং ভারতের মধ্যে বাণিজ্য বাড়ছে। চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে এই হার ১১ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছেছে।

meghna

আরও পড়ুন


meghna