meghna
Singair--Al-Hasan-

‘একবার আওয়ামীলীগ, আবার বিএনপি’ - একই ব্যক্তির প্রচারণায় লাগানো পোষ্টারে বৃহৎ দুই দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের ছবি ব্যবহার করায় বিস্মিত জনগণ। প্রথম পোষ্টারে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রার্থী, পরের পোষ্টারেই বিএনপির নেতা হিসেবে আত্মপ্রকাশ।

বহুরুপী এ ব্যক্তির নাম মো. আল হাসান মিয়া। তিনি মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার ধল্লা ইউনিয়নের দক্ষিণ ধল্লা গ্রামের মৃত বয়াত আলীর পুত্র। বর্তমানে তিনি সরকার বিরোধী কর্মকান্ডে বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের মামলায় জেল হাজতে রয়েছেন। তার মুক্তির দাবীতে বিএনপির ব্যানারে প্রয়াত প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া, তারেক রহমান, সাবেক সাংসদ ইঞ্জিনিয়ার মঈনুল ইসলাম খান শান্ত ও কৃষক দলের দুই নেতার ছবি ব্যবহার করে জেলা ব্যাপী পোষ্টার সাঁটানো হয়েছে।

meghna

গেল বছর এপ্রিল মাসে অনুষ্ঠিত ধল্লা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের আগে আল হাসান সভাপতি প্রার্থী হিসেবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সজিব ওয়াজেদ জয়, স্থানীয় সাংসদ মমতাজ বেগম ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শহিদুর রহমান শহিদের ছবি ব্যবহার করে পোষ্টার-ফেস্টুন লাগান। ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের সাথে সখ্যতা করে বিগত সময়ে ধল্লা নর্দান পাওয়ার প্ল্যান্টের জন্য ধলেশ্বরী নদীর জমি বিক্রির মাধ্যমে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেন বলে অনেকে জানান।

আল হাসান সম্পর্কে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শহিদুর রহমান শহিদ বলেন, এদের সম্পর্কে মন্তব্য করতে ঘৃনা হয়। এরা সুবিধাভোগী খোলস পাল্টানো সন্ত্রাসী ও ভূমিদস্যু।

জেলা কৃষকদলের আহ্বায়ক মো. তোজাম্মেল হক তোজা বলেন, অতীতে অন্য দল করলেও  আল-হাসান বর্তমানে জেলা কৃষক দলের কমিটিতে সদস্য হিসেবে আছেন।

meghna

আরও পড়ুন


meghna