meghna
bahaul-haq-tecnical-istitute

বাহাউল হক টেকনিক্যাল ইনষ্টিটিউটে নবীণ বরণ অনুষ্ঠান ২০২৩ ইং অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে নবীণদের স্বাগত জানানোর পাশাপাশি মেধাবী শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মীদের পুরস্কৃত করা হয়।

meghna

সোমবার (১৬ জানুয়ারি) বাহাউল হক টেকনিক্যাল ইনষ্টিটিউটের সোনারগাঁও উপজেলার গোয়ালদী ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাহাউল হক টেকনিক্যাল ইনষ্টিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা সাবেক এমপি ও নারায়ণগঞ্জ জেলার সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবু নূর মোহাম্মদ বাহাউল হক। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,বাহাউল হক টেকনিক্যাল ইনষ্টিটিউটের পরিচালনা কমিটির সদস্য এ,কে,এম, মহিউদ্দিন, বাহাউল হক ফাউন্ডেশনের জেনারেল সেক্রেটারি ফারুক হোসেন ভূইয়া,বাংলাদেশ শ্রমিক লীগের ট্রেড ইউনিয়ন বিষয়ক সম্পাদক ফিরোজ হোসাইন মিতা, নিউজ২৪বিডি.নেটের নির্বাহী সম্পাদক মাসুদ শায়ান, বাহাউল হক টেকনিক্যাল ইনষ্টিটিউটের পরিচালনা কমিটির সদস্য মেহেদী হাসান বিপ্লব,ইনষ্টিটিউটের অধ্যক্ষ মো: শাহীন মীর, মো: হাবিবুর রহমান, মো: মানিক চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে বাহাউল হক টেকনিক্যাল ইনষ্টিটিউটের কৃতি ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক ও কর্মীদের মধ্যে কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের জন্য পুরস্কার বিতরন করা হয়।

Firoz-h-mita

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আবু নূর মোহাম্মদ বাহাউল হক বলেন- আমাদের সবাইকে সময়ের প্রতি দায়িত্বশীল হতে হবে। আমরা যেন সময়ের কাছে হেরে না যাই। সময়কে যেন আমরা কাজে লাগাতে পারি। আমরা যেন সময়কে অবহেলা না করি। আমাদের প্রতিষ্ঠান ৬ষ্ঠ বছরে পদার্পণ করেছে। এখন পর্যন্ত বেশ সফলতার সাথে আমরা আমাদের প্রতিষ্ঠানকে পরিচালনা করতে সক্ষম হয়েছি। প্রথমে আমরা ১০৮ জন শিক্ষার্থী নিয়ে এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শুরু করেছিলাম। আজ এ প্রতিষ্ঠান সফল।  যারা আজকে ভর্তি হয়েছে। যারা এ প্রতিষ্ঠানকে বেছে নিয়েছে আমি তাদের সবাইকে অজস্র শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, মহান আল্লাহ যাকে প্রয়োজন মনে করেন তাকে দিয়ে তিনি তার কাজ করিয়ে নেন।

তিনি বলেন, এ প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে শরিফা হকের (বাহাউল হকের সহধর্মিণী) কনসেপ্ট আমাদের কাজে অনুপ্রেরনা দিয়েছে। এ প্রতিষ্ঠানের কো- প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন। তিনি মনে প্রানে চেয়েছিলেন বলেই এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো সোনারগাঁওয়ে গড়ে উঠেছে। এসব প্রতিষ্ঠান তৈরী করতে তিনি আমাকে বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করেছেন। আমি তার আত্বার প্রতি শ্রদ্বা জানাচ্ছি।

বিশেষ অতিথি বাহাউল হক টেকনিক্যাল ইনষ্টিটিউটের পরিচালনা কমিটির সদস্য এ,কে,এম, মহিউদ্দিন বলেন, আমি নবীনদের শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। তোমরা সবাই নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সিলেবাসের চাপ্টারগুলো শেষ করবে। মা বাবার সাথে ভাল ব্যাবহার করবে। মায়ের দোয়া ছাড়া জীবনে কোন কিছু অর্জন করা সম্ভব না। তাই মায়ের কথা শুনবে।

mohiuddin

বিশেষ অতিথি বাহাউল হক ফাউন্ডেশনের জেনারেল সেক্রেটারি ফারুক হোসেন ভূইয়া বলেন, আবু নূর মোঃ বাহাউল হক সাহেব সোনারগাঁওয়ের গোয়ালদী গ্রামে শিক্ষা ও চিকিৎসা সেবার যে নূর বা আলো জ্বালিয়েছেন তা যেন শত শত বছর আলো ছড়ায় আমি সে প্রত্যাশা করছি। তিনি অত্যান্ত পরিকল্পনা মাফিক এসব শিক্ষা ও সমাজসেবা মূলক কাজ গুলো করে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, বাহাউল হক সাহেব আজকে যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন তার সুফল যেন শিক্ষার্থীরা শতভাগ পায় আমাদের সে চেষ্টাই করতে হবে। গোয়ালদীর মতো একটি ঐতিহ্যবাহী গ্রাম আজ ধন্য এখানে আদর্শ কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও চিকিৎসা সেবার আওতায় চক্ষু , মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা এবং কিডনি চিকিৎসা দেবার মতো প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। যেখানে হাজার হাজার মানুষ সেবা পাচ্ছে।

Faruk-H-bhuiya

বিশেষ অতিথি বাংলাদেশ শ্রমিক লীগের ট্রেড ইউনিয়ন বিষয়ক সম্পাদক ফিরোজ হোসাইন মিতা বলেন, এক সময় বিদেশে যাওয়ার জন্য ওয়েল্ডিং কাজ শেখার জন্য আমাদের ঢাকায় যেতে হতো। অনেকে সামর্থ না থাকার কারনে ঢাকায় গিয়ে কাজ শিখতে পারেননি। আজকে আমাদের হাতের কাছে গোয়ালদী গ্রামে বাহাউল হক সাহেবে প্রচেষ্টায় গড়ে উঠেছে একটি পরিপূর্ণ টেকনিক্যাল ইনষ্টিটিউট। যেখান থেকে দেশ সেরা প্রকৌশলীরা বের হয়ে আসবে। দেশের উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রাখবে। বিদেশে চাকুরি করে দেশের জন্য রেমিটেন্স আয় করবে।

তিনি বলেন, আজ আমাদের শ্রদ্বেয় শরিফা হকের (বাহাউল হকের সহধর্মীনী) কথা না বললেই নয়। মূলত তার ঐকান্তিক প্রচেষ্টার কারণেই 
গোয়ালদী গ্রামে মসজিদ মাদ্রাসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। শতবর্ষৗ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সোনারগাঁও জি,আর, ইনষ্টিটিউটেও তার বিশেষ অবদান রয়েছে। আজকের এই দিনে আমরা তার প্রতি শ্রদ্বা জানাচ্ছি। আজকে তিনি আমাদের মাঝে নেই। মহান আল্লাহ যেন তাকে জান্নাতবাসী করেন।

Dance

তিনি আরও বলেন, বাহাউল হক সাহেব তার জীবনের সকল সম্পদ আজ তিনি এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও স্বাস্থ্য সেবামূলক প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে ব্যায় করছেন। তিনি বাংলাদেশের অন্যতম ঐতিহাসিক গোয়ালদী গ্রামকে সমৃদ্ব করতে এ গ্রামেই এসব প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। আমরা মহান আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি তিনি যেন তার সকল কর্ম সফল ভাবে শেষ করে যেতে পারেন। আল্লাহ যে তাকে সে পর্যন্ত সুস্থ রাখেন।

অনুষ্ঠানে বাহাউল হকের সহধর্মিণী শরিফা হক স্বরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

https://fb.watch/i8_X3TEp9P/

অনুষ্ঠানের সার্বিক ব্যাবস্থপনায় ছিলেন- বাহাউল হক টেকনিক্যাল ইনষ্টিটিউটের উপ-অধ্যক্ষ ও বাহাউল হক ফাউন্ডেশনের সিনিয়র নির্বাহী কর্মকর্তা লায়লা আফরোজ। অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন- শিক্ষক মূনিরা হক ও সালমান আজিজ।

অনুষ্ঠানে বাহাউল হক টেকনিক্যাল ইনষ্টিটিউটের শিক্ষক ও ছাত্রীরা গান ও নৃত্য পরিবেশন করেন।


এম/এস

meghna

আরও পড়ুন


meghna